আগৈলঝাড়া উপজেলা সদরের ফুলশ্রী এলাকায় স্থাপন করা টাওয়ার -বরিশাল নিউজ

শামীম আহমেদ বরিশাল।। ঘূর্ণিঝড় ফণী মোকাবেলায় গ্রামীণ ফোনের নেটওয়ার্ক বিড়ম্বনা আর প্রতারণার শিকার হয়েছে বরিশালের আগৈলঝাড়া উপজেলা প্রশাসনসহ উপজেলার গ্রাহকরা।
এই অপারেটরের উর্ধতন কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে গ্রাহক প্রতারণা ও নেটওয়ার্ক বিড়ম্বনা দূর করে সেবার মান বৃদ্ধির দাবি জানিয়েছেন উপজেলার বিক্ষুব্ধ গ্রাহক।

বিক্ষুব্ধ গ্রাহক আগৈলঝাড়া উপজেলা চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা আব্দুর রইচ সেরনিয়াবাত জানান, টু-জি থেকে থ্রি-জি নেটওয়ার্ক ঘোষণার পরেই আগৈলঝাড়ায় নেটওয়ার্ক বিড়ম্বনা শুরু হয়। জিপি কোম্পানী সরকারের কাছ থেকে থ্রি-জি তরঙ্গ কিনে উচ্চ মূল্যে গ্রাহকদের কাছে এমবি ও এয়ার টাইম বিক্রি করে আসলেও পূর্বের টু-জি নেটওয়ার্ক এর গতিও পাচ্ছেন না তিনিসহ এই উপজেলার গ্রামীণ ফোন গ্রাহকেরা।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বিপুল চন্দ্র দাস জানান, নেট ওয়ার্ক বিড়ম্বনার সাথে নতুন মাত্রায় গ্রামীণ ফোনে অপারেটরে যোগ হয়েছে ‘বিদ্যুৎ বন্ধের সাথে সাথে ফোনের নেটওয়ার্ক বন্ধ’।
উপজেলা সদরে গ্রামীণ ফোনের স্থাপিত টাওয়ারে অটো জেনারেটর চালু না থাকায় বিদ্যুৎ বন্ধের সাথে সাথে পুরো সদর এলাকার নেটওয়ার্ক বন্ধ হয়ে যায় বলে জানিয়েছেন তিনি। ফলে গ্রামীণ ফোন অপারেটর ব্যবহারকারী গ্রাহকদের সাথে ফোন যোগাযোগ বন্ধ হয়ে যায়। নেটওয়ার্ক বন্ধ হবার কারণে সরকারী জরুরী সেবার আওতায় থাকা উপজেলা পরিষদ, থানা, হাসপাতালসহ বিভিন্ন প্রতিষ্টানের তথ্য প্রযুক্তির ব্যবহার, সাধারণ জনগনের সেবা ও তথ্য আদান প্রদান স্থবির হয়ে পরে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বিপুল চন্দ দাস আরও বলেন, ঘুর্নিঝড় ফণী মোকাবেলায় প্রশাসনের প্রস্তুতি গ্রহনের পরে বৈরী আবহাওয়ার মধ্যে শুক্রবার ( ৩মে) মধ্য রাত থেকে শনিবার (৪মে) সন্ধ্যা পর্যন্ত উপজেলার সকল এলাকায় বিদ্যুৎ সঞ্চালন বন্ধের সাথে সাথে উপজেলার সরকারী দপ্তরসহ গ্রামীণ ফোন ব্যবহারকারী কয়েক লাখ গ্রাহক একে অপরের সাথে নেটওয়ার্ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েন। ‘ফণী’ মোকাবেলায় সরকারের খোলা নিয়ন্ত্রণ কক্ষের সাথে জেলা ও বিভিন্ন মন্ত্রনালয়ের যোগাযোগে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে। একইভাবে জিপি নেটওয়ার্ক ব্যবহারকারী গ্রাহকেরা একে অপরের সাথে ‘ফণী’র ছোবলের সর্বশেষ খবর আদান প্রদানের তথ্য সেবা থেকে ছিটকে পড়েছে। জেলায় খোলা ‘ফণী’র নিয়ন্ত্রণ কক্ষে সময়মতো প্রেরণ করা যায়নি সরকারে চাহিত তথ্য সমূহ।
উপজেলার একাধিক মোবাইল অপারেটর ব্যবসায়িদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, এই উপজেলায় জিপির রেজিষ্ট্রেশনকৃত গ্রাহক সংখ্যা আট লাখের উপরে। নতুন করে দেশে ফোর-জি নেটওয়ার্ক চালুর পর গ্রামীণ ফোন বরিশাল জেলা শহরে সম্প্রতি ফোর-জি-নেটওয়ার্ক চালু করলেও আগৈলঝাড়া উপজেলায় এখনও ফোর-জি নেটওয়ার্ক চালু করেনি। অথচ কোম্পানীটি প্রতারণা করে আগৈলঝাড়ায় তাদের গ্রাহকদের এসএমএস এর মাধ্যমে ফোর-জি নেটওয়ার্কের যাবার অনুরোধ জানিয়ে আসছে।
বরিশাল নিউজ/শামীম