বরিশাল নিউজ ডেস্ক।। ইংলিশ হওয়ার পরও ইংল্যান্ডের মাটিতে বিশ্বকাপে স্টিভ রোডস তেমন কোনো ইনপুট দিতে পারেননি। উল্টো নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে উইকেটের আচরণ ও চরিত্র এবং গতি-প্রকৃতি ভুল করে দলকে ভুল বার্তা পাঠিয়ে বিপর্যয় ত্বরান্বিত করেছিলেন। সেটা খুব বড়সড় বিষয় হয়ে দেখা দিয়েছে।
নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ওই ম্যাচের পরই জাগো নিউজের পাঠকদের জন্য এক প্রতিবেদনে লেখা হয়েছিল, ইংলিশ কোচ ইংল্যান্ডের পিচ সম্পর্কে ভুল ধারণ পোষণ করলে, তাকে রাখার যৌক্তিকতা কি?
জানা গেছে সেটাও বোর্ডের অভ্যন্তরে বড় ধরনের প্রভাব ফেলেছে। বোর্ড কর্তারাও নিজেদের মধ্যে বলাবলি করেছেন, সত্যিই তো। ইংলিশ কোচ যদি ইংল্যান্ডের পিচ চিনতে ভুল করেন, তাহলে আর তাকে রেখে লাভ কি?
বলার অপেক্ষা রাখে না, নিউজিল্যান্ডের সাথে হারটিই আসলে বাংলাদেশের বিশ্বকাপ সেমিফাইনাল খেলতে না পারার সবচেয়ে বড় কারণ। তাই বোর্ডে সেই ম্যাচে কোচের পাঠানো ভুল বার্তাটির চরম নেতিবাচক প্রভাব ফেলেছে। বলার অপেক্ষা রাখে না, যে উইকেটকে মাশরাফি খেলা শেষে ২৭০ রানের উইকেট বলে অভিহিত করেছেন, সেই উইকেটকে সাড়ে তিনশ’র পিচ বলে ব্যাটসম্যানদের হাত খুলে খেলতে বলেছিলেন স্টিভ রোডস। যে বার্তাটি ‘বুমেরাং’ হয়েছে।
আভাস মিলেছিল হয়তো শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজটিই স্টিভ রোডসের শেষ সিরিজ হতে পারে। ধারণা করা হয়েছিল নতুন কোচ নিয়োগ না দিয়ে কিংবা একজন হাই প্রোফাইল কোচ না পেয়ে, তার সাথে কথাবার্তা চূড়ান্ত না করে সহসাই রোডসকে অব্যাহতি পত্র দেবে না বিসিবি।
কিন্তু সোমবার হুট করেই বদলে গেল সব দৃশ্যপট। হেড কোচ স্টিভ রোডসের সঙ্গে লম্বা আলোচনা পর্ব শেষ করে, শ্রীলঙ্কা সফরের আগেই বাংলাদেশের কোচিং প্যানেলে বড় রদবদল এনেছে বিসিবি। বিদায় জানিয়ে দেয়া হয়েছে প্রায় সবাইকে।
শুধুমাত্র ব্যাটিং কোচ নেইল ম্যাকেঞ্জি এবং ফিল্ডিং কোচ রায়ান কুককে স্বপদে বহাল রেখেছে বিসিবি। সমঝোতার মাধ্যমে বিদায় জানানো হয়েছে হেড কোচ স্টিভ রোডসকে এবং চুক্তির মেয়াদ শেষ হওয়ার পর পেস বোলিং কোচ কোর্টনি ওয়ালশ, স্পিন বোলিং কোচ সুনিল জোসি এবং ফিজিও থিহান চন্দ্রমোহনের সঙ্গে চুক্তি নবায়ন করেনি বোর্ড।
এদিকে ম্যাকেঞ্জিকে তার দায়িত্বে রেখে দেয়া হলেও, চলতি মাসের শেষদিকে ব্যক্তিগত কারণে শ্রীলঙ্কা সফরে থাকবেন না নেইল ম্যাকেঞ্জি। সে সফরে প্রধান কোচ কে হবেন, সে ব্যাপারেও কিছু জানানো হয়নি বোর্ডের পক্ষ থেকে।

বরিশাল নিউজ/শাওন