রাজকোটে বাংলাদেশ দল

ফিরে গেলেন মাহমুদউল্লাহও

দারুণ খেলছিলেন মাহমুদউল্লাহ। দলের রান বাড়ানোর কাজ করছিলেন তিনিই। সেই চেষ্টাতেই বেরিয়ে এসে খেলতে চেয়েছিলেন দিপক চাহারকে। বোলার চাহার সেটি বুঝে শর্ট লেংথে করেন স্লোয়ার ডেলিভারি। মাহমুদউল্লাহ তবু চেয়েছিলেন আপার কাট করতে। কিন্তু জোর পাননি শটে। সহজ ক্যাচ যায় শর্ট থার্ড ম্যানে। মাহমুদউল্লাহ ফিরে গেলেন ১৯তম ওভারে।২১ বলে ৩০ রান করেন মাহমুদউল্লাহ। ১৮.৩ ওভারে বাংলাদেশ ৬ উইকেটে ১৪২।

পারলেন না আফিফ

খলিল আহমেদকে উড়িয়ে মারতে গিয়ে ফিরলেন ৮ বলে ৬ রান করে ফিরে গেলেন আফিফ।

প্রথম ২ ওভারে খরুচে খলিলকে আরেকটি সুযোগ দিলেন অধিনায়ক রোহিত। খলিল প্রতিদান দিলেন নতুন স্পেলের প্রথম ওভারে উইকেট এনে দিয়ে। দ্রুত রানের খোঁজে থাকা আফিফ জায়গা বানিয়ে উড়িয়ে মেরেছিলেন খলিলকে। টাইমিং হয়নি ঠিক মতো। কাভারে ক্যাচ নিলেন রোহিত।

১৬.৩ ওভারে বাংলাদেশ ৫ উইকেটে ১২৮।

ফিরলেন সৌম্যও

মুশফিককে হারানোর ধাক্কা সামাল দেওয়ার আগেই আরেকটি বড় ধাক্কা। এবার ফিরলেন সৌম্য সরকার। এক ওভারেই বড় দুটি শিকার ধরলেন যুজবেন্দ্র চেহেল।

সৌম্যকে বেরিয়ে আসতে দেখেই হয়ত স্টাম্পের বাইরে গুগলি করেছিলেন চেহেল। বল পিচ করে আরও বেরিয়ে যায় বাঁহাতি সৌম্যর ব্যাটের বেশ দূর দিয়ে। কিপার পান্ত বল ধরে উড়িয়ে দেন বেলস।

এবারও তৃতীয় আম্পায়ার টিভি রিপ্লে দেখে নেন, পান্ত স্টাম্পের আগে থেকেই বল ধরেছেন কিনা। তবে এবার ভুল করেননি ভারতীয় কিপার। তৃতীয় আম্পায়ার অবশ্য ভুল করে শুরুতে ‘নট আউট’ ঘোষনা দিয়েছিলেন। পরে আবার জানিয়ে দেন ‘আউট।’

দারুণ খেলতে থাকা সৌম্য বিদায় নিলেন ২০ বলে ৩০ রান করে। বাংলাদেশ ১৩ ওভারে ৪ উইকেটে ১০৩।

বাংলাদেশের একশ

উদ্বোধনী জুটি ফেরার পর দলকে দারুণভাবে এগিয়ে নিচ্ছেন সৌম্য সরকার। খেলেছেন চোখধাঁধানো কয়েকটি শট। দ্রুত বাড়িয়ে নিয়েছেন রান। তবে একটু ছন্দপতন হয়েছে মুশফিকুর রহিমকে হারিয়ে। ১২.৩ ওভারে বাংলাদেশ স্পর্শ করেছেন শতরান।

প্রিয় শটে মুশফিকের বিদায়

বাংলাদেশের আগের ম্যাচের নায়ক মুশফিক ফিরে গেলেন ৬ বলে ৪ রানে। বাংলাদেশ ১২.১ ওভারে ৩ উইকেটে ৯৭।

সুন্দর ফেরালেন নাঈমকে

পাওয়ার প্লে শেষ হওয়ার পর থেকে ঠিক হাত খুলে খেলতে পারছিলেন না মোহাম্মদ নাঈম শেখ। একটু অধৈর্য্য হয়ে উঠছিলেন। খেসারত দিলেন সেটিরই।

ওয়াশিংটন সুন্দরের স্পেলের শেষ ওভারে স্লগ সুইপ খেললেন নাঈম। কিন্তু শটে ছিল না যথেষ্ট জোর। মিড উইকেট সীমানার বেশ ভেতরেই সহজ ক্যাচ নিলেন শ্রেয়াস আইয়ার।

৩১ বলে ৩৬ রান করে বিদায় নিলেন নাঈম। ১০.৩ ওভারে বাংলাদেশ ২ উইকেটে ৮৩।

রান আউট লিটন

২৯ রানের মাথায় সতীর্থের সঙ্গে ভুল বোঝাবুঝিতে রানআউট হয়ে ফিরেছেন। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত ৭.২ ওভার শেষে বাংলাদেশের সংগ্রহ ১ উইকেটে ৬০ রান।

বাংলাদেশের দুর্দান্ত শুরু

পাওয়ার প্লেতে দারুণ ব্যাটিংয়ে দলকে দুর্দান্ত শুরু এনে দিলেন লিটন দাস ও নাঈম শেখ। জীবন পাওয়ার পরের দুই বলেই চেহলকে বাউন্ডারি মারলেন লিটন। ৬ ওভার শেষে বাংলাদেশের রান বিনা উইকেটে ৫৪।

নাঈম তখন খেলছেন ২০ বলে ২৭ রানে, ১৭ বলে ২৬ লিটন।

বেঁচে গেলেন লিটন

লেগ স্পিন আক্রমণে আসতেই উইকেটের উপলক্ষ্য তৈরি করেছিল ভারত। কিন্তু রিশাভ পান্তের কিপিং ব্যর্থতায় অবিশ্বাস্যভাবে বেঁচে গেলেন লিটন দাস।

যুজবেন্দ্র চেহেলের প্রথম ওভারের তৃতীয় বলে অনেকটা বেরিয়ে এসে তেড়েফুঁড়ে খেলতে গিয়েছিলেন লিটন। ব্যাট নাগাল পায়নি বলের। স্টাম্পিংয়ের অনায়াস সুযোগ। বল ধরে চকিতে বেলস ফেলেও দেন কিপার পান্ত। লিটন হাঁটা দিয়েছিলেন ড্রেসিং রুমের দিকে। কিন্তু টিভি রিপ্লেতে দেখা যায়, বল ধরার সময় পান্তের গ্লাভসের সামান্য অংশ ছিল স্টাম্পের সামনে!

১৭ রানে জীবন পেলেন লিটন।

ক্রিকেট প্রেমীদের পক্ষে ছিল ‘মাহা’! তাই শঙ্কা ছড়িয়েও শেষ পর্যন্ত রাজকোট থেকে বিদায় নিয়েছে । যাওয়ার সময় মাঠে আলো ছড়িয়ে খুশি করে গেছে ভারত-বাংলাদেশের ক্রিকেট দর্শকদের । আর খেলা নিশ্চিত করেছে আয়োজকরা।

টসে ভারতের জয়

চোখ বন্ধ করে মুদ্রা ওপরে ছুঁড়েছিলেন রোহিত শর্মা। মাহমুদউল্লাহ ডেকেছিলেন ‘টেইলস’, কিন্তু পড়ল ‘হেড’। টস জিতে রোহিত বাংলাদেশকে ব্যাটিংয়ে পাঠালেন ভারতীয় অধিনায়ক।

রোহিতের মতে, উইকেট ব্যাটিং সহায়ক। ম্যাচের পরের ভাগেও উইকেট একই থাকবে, রান তাড়ায় সমস্যা হবে না।

টস জিতলে বাংলাদেশও আগে বোলিং বেছে নিত বলে জানালেন মাহমুদউল্লাহ। তবে আগে ব্যাট করতেও তার আপত্তি নেই, গড়তে চান বড় স্কোর।

দিল্লির খেলোয়ার নিয়েই শুরু হচ্ছে দ্বিতীয় ম্যাচটি।

ভারত একাদশ: রোহিত শর্মা (অধিনায়ক), শিখর ধাওয়ান, লোকেশ রাহুল, শ্রেয়াস আইয়ার, রিশাভ পান্ত, শিবম দুবে, ক্রুনাল পান্ডিয়া, ওয়াশিংটন সুন্দর, যুজবেন্দ্র চেহেল, দিপক চাহার, খলিল আহমেদ।

বাংলাদেশ একাদশ: সৌম্য সরকার, লিটন দাস, নাঈম শেখ, মুশফিকুর রহিম, মাহমুদউল্লাহ, আফিফ হোসেন, মোসাদ্দেক হোসেন, আমিনুল ইসলাম, শফিউল ইসলাম, মুস্তাফিজুর রহমান, আল আমিন হোসেন।