বরিশাল নিউজ।। বরিশালের মেহেন্দিগঞ্জ-হিজলা আসনের সংসদ সদস্য ও কেন্দ্রীয় স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক পঙ্কজ নাথ বলছেন,”আমার বিরুদ্ধে বরিশালে বসে এক কুলাঙ্গারকে দিয়ে সংবাদ সম্মেলন কারা করায় তা এলাকাবাসীর জানতে বাকি নেই”।

বরিশালে সংবাদ সম্মেলন করে সংসদ সদস্য পঙ্কজ নাথের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজী,দখলদারিত্বসহ অবৈধ ধন দৌলত অর্জনের অভিযোগ আনেন এক আওয়ামী লীগ নেতা। পঙ্কজ নাথ ওই অভিযোগ মিথ্যা ভিত্তিহীন বলে দাবি করেন ।
তিনি মেহেন্দিগঞ্জের মুক্তিযুদ্ধা পার্কে বুধবার ৬ই নভেম্বর দুপুরে পাল্টা সংবাদ সম্মেলন করে বলেন,”আমি বিভিন্ন খেয়া-ঘাট, লঞ্চঘাট এলাকার টিকিট জনস্বার্থে মুক্ত করে দিয়েছি ,এখানে কোন চাঁদাবাজীর স্থান নাই”।

পঙ্কজ নাথ আরো বলেন ” উত্তরায় আমার কোন বাড়ি নেই সেখানে আমার বাবাকে মুক্তিযোদ্ধা হিসাবে সরকার থেকে একটি প্লট বরাদ্ধ দেয়া হয়েছে,যা আমার মা সুমিতা নাথের নামে।

তিনি বলেন,”আমি কখনো নৌকার বিরোধিতা করি নাই । এখানে জেলা আওয়ামী লীগের মনোনয়ন বাণিজ্যের কারনেই নৌকার প্রার্থী হেরেছে । তারা আমাকে হেয় প্রতিপন্ন করার জন্য নৌকার ভরাডুবি দেখাতে বিএনপির প্রার্থীকে জিতিয়ে দেবার পরিকল্পনা করেছিল”।

পঙ্কজ নাথ আরো বলেন যাকে নৌকার প্রার্থী দেয়া হয়েছে তার নাম মনোনয়ন বোর্ডে ছিল না।তিনিতো আগেই ঘোষণা দিয়েছিলেন তিনি নির্বাচন করবেন না।

তিনি আরো বলেন, যারা বরিশালে বসে মনোনয়ন বাণিজ্য করে তারাই এমন চিন্তা ভাবনা করেন। তাছাড়া জেলা আওয়ামী লীগ সম্পাদক তালুকদার মোঃ ইউনুস নির্বাচনের তিনদিন আগে সংবাদ সম্মেলন করে নৌকার ভরাডুবি নিশ্চিত করে দিয়েছেন । এলাকাবাসী উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে তাদের পছন্দের প্রার্থীকে বিজয়ী করেছেন।

সংসদ পঙ্কজ দেবনাথ সংবাদ সম্মেলনে আরো বলেন আমার মেহেন্দিগঞ্জ ও হিজলায় যারা পরিবারগত আওয়ামী লীগ আজ তারা হয়েছে অনুপ্রবেশকারী ,অন্যদিকে তাদের হাত ধরে যারা আওয়ামী লীগে প্রবেশ করেছে তাদের নাম অনুপ্রবেশকারীর তালিকায় নেই।

সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন উপজেলা আওয়ামী লীগ সহ-সভাপতি আঃ শহীদ শাহ্‌,সাধারণ সম্পাদক ও পৌর মেয়র কামাল উদ্দিন খান,যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান রিপন,উপজেলা চেয়ারম্যান মাহফুজ আলম লিটন,ভাইস চেয়ারম্যান খোরসেদ আলম লিটন,মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান রহমান বিনতে সফিকুল ইসলামসহ আওয়ামী লীগের নেতা ও বিভিন্ন ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানগণ।
বরিশাল নিউজ/স্টাফ রিপোর্টার