হত্যা-প্রতীকী ছবি

ভোলা নিউজ।। নিখোঁজের পাঁচদিন পর ভোলায় হাত-পা বাঁধা অবস্থায় শুক্রবার পারভেজ নামের এক কিশোরের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। সে সদর উপজেলার চরসামাইয়া ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা মো. বিল্লাল হোসেনের ছেলে।

পুলিশ ও নিহতের পরিবার সূত্রে জানা গেছে, ভোলা সদর উপজেলার আলীনগর ইউনিয়নের সাহেবের কাচারী এলাকার আলীনগর ও চরসামাইয়া ইউনিয়নের মাঝ দিয়ে বয়ে যাওয়া সাচিয়ার খালে মৃতদেহ ভাসতে দেখে স্থানীয় জনগণ। তারা ভোলা থানাকে অবহিত করলে ওসি তদন্ত মনির হোসেন মিয়ার নেতৃত্বে পুলিশের একটি টিম পারভেজ (১৫) মৃতদেহটি উদ্ধার করে। এ খবর পারভেজের পরিবারও লোক মারফত শুনতে পায়। খবর শুনে তার পরিবার এসে মৃতদেহ সনাক্ত করে জানায় এ কিশোরই পারভেজ। পাঁচদিন আগে সে নিখোঁজ হয়।

নিহত পারভেজের মা শহিনুর বেগম জানান, গত সোমবার প্রতিদিনের মত গ্যারেজ থেকে সকালে রিকশা নিয়ে বের হয় পারভেজ। সারাদিন রিকশা চালিয়ে প্রতিদিন রাতে বাড়ি ফিরলেও ওই দিন আর পারভেজ বাড়ী ফিরেনি। বাড়ি না ফেরায় পরদিন মঙ্গলবার সকাল থেকে ভোলার বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ বাজারে তাকে খোঁজা হয়। পরে পরিবারের সদস্যরা পারভেজ নিখোঁজ জানিয়ে মাইকিং ও লিফলেট বিতরণ করে। কিন্তু কোথাও তাকে খুঁজে পায়নি তারা।

পারভেজের বাবা বিল্লাল বলেন, সে একটি বোরাক চালাত। ১০ রমজানের দিকে একদল দুর্বৃত্ত তাকে মারধর করে সেই বোরকটি নিয়ে যায়। এরপর পারভেজ অন্যের কাছ থেকে নিয়ে ভাড়ায় একটি অটোরিক্সা চালাত। তার ধারনা ওই গ্রুপটি-ই আবার পারভেজকে মারধর করে হা-পা বেধে পানিতে ফেলে অটোরিক্সাটি নিয়ে গেছে। তিনি আরো বলেন, তাদের সাথে কিংবা পারভেজের সাথে কারো কোন বিরোধ ছিল না। তিনি প্রশাসনের কাছে এ ঘটনার সুষ্ঠ বিচার দাবি করেছেন।
বরিশাল নিউজ/শরীফ