ভোলারবোরহানউদ্দিনে তৌহিদি জনতার বিক্ষোভ-বরিশাল নিউজ

ভোলা নিউজ।। ফেসবুক স্ট্যাটাসকে কেন্দ্র করে ভোলার বোরহানউদ্দিনে ‘তৌহিদি জনতা’র সাথে পুলিশের সংঘর্ষের চারজন নিহত হয়েছেন বলে খবর পাওয়া গেছে। আহত হন পুলিশসহ অর্ধশতাধিক।
নিহতরা হলেন- মাহফজুর রহমান পাটোয়ারী (২৩), মিজান (৩০), মাহবুর রহমান (৩০) ও শাহিন (২৫)। নিহতদের বাড়ি একই এলাকায়। নিহত মাহফুজ বোরহানউদ্দিন পৌরসভার ৩নং ওয়ার্ডের সাবেক কমিশনার মিরাজ পাটোয়ারীর ভাই। এ ঘটনায় পুলিশসহ শতাধিক লোক আহত হয়েছেন। তাদের বোরহানউদ্দিন ও ভোলা সদর হাসপাতালসহ বিভিন্ন প্রাইভেট ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়েছে।

স্থানীয় সূত্র জানায়, ফেসবুকে মহানবীকে (স.) নিয়ে কটূক্তি করার প্রতিবাদ রবিবার বেলা ১১টায় বোরহানউদ্দিন হাইস্কুল মাঠে পূর্বঘোষিত কর্মসূচির অংশ হিসেবে প্রতিবাদ সমাবেশের আয়োজন করা হয়। ‘নবী অবমাননা’ ও ‘আল্লাহকে নিয়ে কটূক্তিকারীর ফাঁসি চাই’- স্লোগান দিয়ে লোকজন সমাবেশস্থলে আসেন।

তারা আরো বলেন, বোরহানউদ্দিনে বিপ্লব চন্দ্র শুভ নামের এক যুবক শুক্রবার বিকালে তার ফেসবুক আইডি থেকে কয়েকজনের সঙ্গে মেসেঞ্জারে আল্লাহ ও রাসূলকে (স.) নিয়ে কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য করেন। একপর্যায়ে কয়েকটি আইডি থেকে ম্যাসেজগুলোর স্ক্রিন শর্ট নিয়ে ফেসবুকে কয়েকজন প্রতিবাদ জানালে বিষয়টি সবার নজরে আসে। পরবর্তীতে ফেসবুকজুড়ে প্রতিবাদের ঝড় ওঠে।

ভোলা জেলা পুলিশ সুপার সরকার মো. কায়সার জানান, অনুমতি ছাড়াই তারা সমাবেশ করতে চেয়েছিল। আমরা তাদের দ্রুত শেষ করতে বলি। কিন্তু তারা কথা না শুনে উল্টো আমাদের ওপর হামলা চালায়। একপর্যায়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে গুলি ছুড়তে বাধ্য হই আমরা।

বোরহানউদ্দিন উপজেলায় পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষের পর র‌্যাব মোতায়ের-বরিশাল নিউজ

স্থানীয়রা জানায় পুলিশ মুসল্লিদের উপর নির্বচারে গুলি ও টিয়ারগ্যাস নিক্ষেপ করে। মুসল্লিরা দিকবিধিক ছুটোছুটি করতে থাকে তবে নিহত ও আহতের সংখ্যা আরো বাড়তে পারে বলে স্থানীয়রা জানিয়েছে। বোরহান উদ্দিনের পরিস্থিতি এখনও উত্তপ্ত।
পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে সেখানে বিপুল সংখ্যক র‌্যাব ও পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

বরিশাল নিউজ/ভোলা