পিরোজপুর নিউজ।। পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় ছেলে, পুত্রবধূ ও দুই নাতির নির্যাতনে আম্বিয়া খাতুন (৬৫) নামে এক বৃদ্ধা নিহত হয়েছেন।

শনিবার বিকালে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন তার মৃত্যু হয়।

উপজেলার জানখালী গ্রামের নিহত আম্বিয়া খাতুনের স্বামী হেমায়েত তালুকদার (৭০) বলেন, আমার তিন ছেলের মধ্যে ছোট ছেলে শহিদের সঙ্গে আমরা স্বামী-স্ত্রী একত্রে থাকা-খাওয়া করি। বড় ছেলে জলিল ও মেঝ ছেলে জহির তালুকদার তাদের মতো পৃথক বসবাস করে।

তিনি বলেন, “শনিবার সকালে আমি ছোট ছেলে শহিদকে নিয়ে সুপারি পাড়ার জন্য বাগানে যাই। এ সময় বড় ছেলে জলিল তার স্ত্রী মাহমুদা বেগম, ছেলে ছোবাহান ও সরোয়ার সুপারি পাড়তে বাধা দেয়। এ সময় তারা আমার সঙ্গে কথা কাটাকাটির একপর্যায়ে আমার হাতে ছেলে জলিল কামড় দেয়।”

আমার চিৎকার শুনে স্ত্রী আম্বিয়া বেগম আমাকে রক্ষা করতে আসলে তার ওপর হামলা চালিয়ে গুরুতর আহত করে। পরে স্থানীয়দের সহযোগিতায় তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করি। বিকালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায় সে।”

মঠবাড়িয়া থানার ওসি মাসুদুজ্জামান জানান, মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। লিখিত অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।
বরিশাল নিউজ/পিরোজপুর