প্রতীকী ছবি-বরিশাল নিউজ


বরিশাল নিউজ ডেস্ক।। ঝালকাঠির অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালত সোমবার গৃহবধূ আনোয়ারা বেগম হত্যা মামলায় দুই জনের মৃত্যুদন্ড ও আরো তিনজনকে যাবজ্জীবন কারাদন্ড দিয়েছেন।
একইসঙ্গে মৃত্যুদন্ডপ্রাপ্ত প্রত্যেককে ২০ হাজার এবং যাবজ্জীবনপ্রাপ্তদের ১০ হাজার টাকা করে জরিমানার আদেশ দেয়া হয়। এছাড়া মামলার অপর ২জন আসামীকে খালাস দেওয়া হয়েছে।

দন্ডপ্রাপ্তরা হলো

মৃত্যুদন্ডপ্রাপ্তরা হলো- ঝালকাঠি সদর উপজেলার রাজপাশা গ্রামের শেখ খাইরুল হাসান ওরফে হাসান মহুরি ও পিলটন সরদার।
যাবজ্জীবন দন্ড প্রাপ্তরা হলো একই গ্রামের রিপন সরদার, শাহাদাত হোসেন ও আবদুস ছালাম।
বিচারক শেখ. মো. তোফায়েল হাসান আসামীদের উপস্থিতিতে এ রায় ঘোষণা করেন।

মামলার বিবরণ

২০০২ সালের ১৬ মে রাতে রাজপাশা গ্রামের বাচ্চু খানের বাড়িতে ডাকাতির উদ্দেশ্যে শেখ খাইরুল হাসানের নেতৃত্বে একদল ব্যক্তি ঘরের ভেতরে ঢোকার চেষ্টা করে।
বিষয়টি টের পেয়ে বাচ্চু খান চিৎকার করলে প্রতিবেশী আনোয়ারা বেগম বাইরে বের হয়ে শেখ খাইরুল হাসানকে চিনে ফেলেন। ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী সাক্ষীকে শেষ করার জন্য দু’দিন পরে ১৮ মে হাসানের নেতৃত্বে ৭-৮ জন ব্যক্তি কৃষক মকবুল হোসেনের ঘরে ঢুকে তাঁর স্ত্রী আনোয়ারা বেগমকে কুপিয়ে হত্যা করে। এ ঘটনায় পরের দিন ঝালকাঠি থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়।
মামলাটি পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগের (সিআইডি) পরিদর্শক কাজী আশ্রাফ আলী তদন্ত শেষে ২০০৪ সালের ২১ নভেম্বর আদালতে চার্জশীট প্রদান করে। আদালত ১৫ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে রায় ষোঘণা করেন। রাষ্ট্রপক্ষে মামলা পরিচালনা করেন অতিরিক্ত সরকারি কৌঁসুলি এম আলম খান কামাল ও আসামী পক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট আব্দুর রশীদ সিকদার।
সূত্র:বাসস