বরিশাল নিউজ।। পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় ফাতড়া টেংরাগিড়ি বনাঞ্চল থেকে লোকালয়ে আসা প্রায় চার ফুট লম্বা দূর্লভ প্রজাতির একটি বাঘ আটক করেছে গ্রামবাসী। এ সময় গ্রামবাসীরা তাদের পোষা প্রানী মেরে ফেলার অজুহাত এনে বাঘটি মারার চেষ্টা করে। পরে স্থানীয় এক প্রানী সচেতন ব্যক্তির সহায়তায় বাঘটিকে উত্তেজিত গ্রামবাসীর হাত থেকে রক্ষা করা হয়।
কলাপাড়ার নীলগঞ্জ ইউনিয়নের পাখিমারা প্রাথমিক ও মাধ্যমিক বিদ্যালয় সংলগ্ন কমিউনিটি ক্লিনিকের পাশ থেকে এ বাঘটি আটক করে গ্রামবাসীরা।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, পাশ্ববর্তী ফাতড়া টেংরাগিড়ি বনাঞ্চল থেকে দুপুরের জোয়ারে খাল সাঁতরে বাঘটি লোকালয়ে চলে আসতে পারে। দুপুরে স্কুলের পিছন থেকে লোকালয়ে চলে আসলে শতশত গ্রামবাসী ও স্কুলের শিক্ষার্থীরা জাল দিয়ে আটকে ও বাঁশ দিয়ে পিটিয়ে বাঘটিকে আহত করে বেঁধে ফেলে। এ সময় আমিনুর রহমান জিন্নাহ নামের এক বন্যপ্রানী সচেতন ব্যক্তি বাঘটিকে পিটিয়ে মেরে ফেলার কবল থেকে রক্ষা করে কলাপাড়া বন বিভাগের কাছে হস্তান্তরের উদ্যোগ নেয়।

কলাপাড়া বনবিভাগের সদর বিট কর্মকর্তা কাজী নজরুল ইসলাম বরিশাল নিউজকে জানান, গ্রামবাসীদের হাতে আটক বাঘটি বিলুপ্ত প্রজাতির মেছো বাঘ। স্থানীয় ভাষায় এটিকে ডাস বাঘ বা বনবিড়ালও বলে। বাঘটি লম্বায় প্রায় চার ফুট ও উচ্চতা প্রায় আড়াই ফুট। এ বাঘটি বিলুপ্ত প্রায় প্রজাতির হওয়ায় নিশানবাড়িয়া টেংরাগিড়ি বনাঞ্চলে অবমুক্ত করা হবে।

বরিশাল নিউজ/মিলন