নির্মাণাধীন পায়রা তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্র-বরিশাল নিউজ

নির্মাণাধীন পায়রা তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্র-বরিশাল নিউজ

বরিশাল নিউজ।। বিদ্যুৎ সচিব আহমদ কায়কাউস জানিয়েছেন আগামী দু’একদিনের মধ্যেই পায়রা বিদ্যুৎকেন্দ্রের কাজ পুনরায় শুরু করা হবে। এক টেলিভিশন সাক্ষাৎকারে শনিবার দুপুরে তিনি এ তথ্য জানিয়েছেন।
বিদ্যুৎ সচিব বলেন,‌‌”ভুল বোঝাবুঝির কারনে পায়রা বিদ্যুৎকেন্দ্রের বাঙালি ও চাইনিজ শ্রমিকদের মধ্যে মারামারির ঘটনা ঘটেছে। সেখানে যেন অতি দ্রুতই কাজ শুরু হয় তার জন্য আমরা সর্বাত্মক চেষ্টা চালাচ্ছি। ঐ কেন্দ্রে এখনও ব্যাপক পুলিশ ও বিজিবি মোতায়ন রয়েছে। তবে পরিস্থিতি বেশ শান্ত।”
”যেহেতু একটা ঘটনা ঘটে গেছে। অনেকেই ট্রমায় রয়েছেন। তাই প্রথমে টেকনিক্যাল কাজের মধ্য দিয়ে চাইনিজদের মাধ্যমে দু’একদিনেই সেখানে কাজ শুরু হবে। পর্যায়ক্রমে সবাইকে কাজে ফিরিয়ে নেওয়া হবে। কারো মাঝে যেন অবিশ্বাস না থাকে সে ব্যাপারে কর্তৃপক্ষ ব্যবস্থা নিচ্ছে।”- যোগ করেন আহমদ কায়কাউস।
তিনি আরো বলেন,‌”এই হুড়োহুড়িতে অনেকেই অনেক কিছু চুরি করেছে। পুলিশ ঢাকার কেরানীগঞ্জ থেকে পায়রার কিছু সরঞ্জামসহ বেশ কিছু লোককে আটক করেছে। এবিষয়েও তদন্ত চলছে।”
এর আগে মঙ্গলবার বাংলাদেশি ও চীনা শ্রমিকদের সংঘর্ষ এবং সেখানে এক চীনা ও বাংলাদেশি শ্রমিকের মৃত্যুর বিষয়ে বিবৃতি দেয় বিদ্যুৎ বিভাগ। বিবৃতিতে পায়রা বিদ্যুৎকেন্দ্রে ১৭ ও ১৮ জুনের ঘটনাকে ”অনভিপ্রেত ও দুর্ঘটনা” হিসেবে বর্নণা করে তারা। বিদ্যুৎ বিভাগ বলে, প্রাথমিক অনুসন্ধানে দেখা গেছে, নিহত শ্রমিক সাবিন্দ্র দাস কাজের সময় নিরাপত্তার জন্য ব্যবহৃত সরঞ্জাম পরিহিত ছিলেন। কিন্তু শেষবার তিনি সেফটি বেল্টের হুক যথাস্থানে ভুলবশত স্থাপন না করায় উপর থেকে পড়ে গিয়ে নিহত হন। সেখান থেকে বিক্ষোভের সূত্রপাত। পরে রাতে শ্রমিকদের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। এতে ১০ জন বাংলাদেশি এবং ৬ জন চীনা শ্রমিক আহত হন।
বিবৃতিতে আরও বলা হয়, চীনা শ্রমিক ঝাং ইয়াং ফাং ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার সময় পড়ে মাথায় আঘাত পান। রাতেই তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বরিশাল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তবে দুর্ভাগ্যজনকভাবে চিকিৎসকদের আপ্রাণ চেষ্টা সত্ত্বেও তাকে বাঁচানো সম্ভব হয়নি।
এ ঘটনায় চীনা ও বাংলাদেশি আহত শ্রমিক কারো অবস্থা আশঙ্কাজনক নয় দাবি করে বিবৃতিতে বলা হয়, তদুপরি তাদের ঢাকায় উন্নত চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। পায়রা বিদ্যুৎকেন্দ্রের শ্রমিকরা কাজে ফিরেছেন এবং পরিস্থিতি সম্পূর্ণ শান্ত বলে বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়।
পায়রা তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রে শ্রমিকদের নিরাপত্তাকে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দেওয়া হয় জানিয়ে আরও বলা হয়,ইতোমধ্যে বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজসম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ, বিদ্যুৎ সচিব আহমদ কায়কাউস, বাংলাদেশ-চায়না পাওয়ার কোম্পানি লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী এ এম খোরশেদুল আলম, চায়না দূতাবাসের দু’জন প্রতিনিধি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। বাংলাদেশ-চীনা শ্রমিকদের সঙ্গে বৈঠকে সার্বিক বিষয়ে পর্যালোচনা করে ব্যবস্থা গ্রহনের আশ্বাস দেওয়া হয়েছে।
প্রতিমন্ত্রী দ্রুত সময়ের মধ্যে দোষীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্যও আইন প্রয়োগকারী সংস্থাদের নির্দেশ দিয়েছেন। এছাড়া নির্মাণাধীন পায়রা বিদ্যুৎকেন্দ্রের নিরাপত্তা ও শ্রমিকের কর্মপরিবেশ আরও উন্নত করতে বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী কিছু নির্দেশনা দিয়েছেন। যা শিগরিরই বাস্তবায়ন করা হবে বলে বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়।

বরিশাল নিউজ/শাওন