বরিশাল নিউজ॥ আগামী বুধবার প্রথমবারের মতো বাজেট ঘোষণা করতে যাচ্ছেন বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহ। বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের অষ্টাদশ বাজেট হবে এটি।
২০১৯-২০২০ অর্থবছরের এই বাজেটের আকার কেমন হবে তা এখনি প্রকাশ না করলেও বাস্তবায়নযোগ্য নয় এমন কোন স্বপ্ন বিলাসী বাজেট হবে না বলে জানিয়েছেন সিটি কর্পোরেশনের কর্মকর্তা বেলায়েত হাসান বাবলু।

মেয়রের বরাত দিয়ে তিনি জানান, আসন্ন বাজেটে অনেকগুলো সুখবর রয়েছে। নতুন করে কোন কর আরোপ করা হবে না, সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব পাবে সড়ক ও ড্রেনেজ ব্যবস্থার উন্নয়ন, দখলকৃত খাল পুনরূদ্ধার এবং খনন। আর নগরীর সৌন্দর্য বর্ধনের কাজও গুরুত্বসহকারে দেখা হচ্ছে আসন্ন বাজেটে।
বেলায়েত বাবলু বলেন, মানুষকে স্বপ্ন দেখিয়ে তা বাস্তবায়ন হবে না এমন কোন বাজেট আসবে না বলে নিশ্চিত করেছেন মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহ। তার (মেয়র) ভাষ্যমতে, জনগনের যা দরকার হবে সেটিই হবে আসন্ন বাজেট।

নগরভবন সূত্রে জানা গেছে, বর্তমানে কোন ধরণের কর্মচারী অসন্তোষ নেই। নগরবাসীর সেবার মানও বেড়েছে। পাশাপাশি কর্মরত কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বকেয়া বেতনও নেই। এটিকে বর্তমান মেয়রের সবচেয়ে বড় অর্জন বলতে চান কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা।
জানা গেছে, দিন দিন আয় বাড়ছে নগরভবনের। নিয়মতান্ত্রিকভাবে চলায় এটা সম্ভব হয়েছে বলে জানিয়েছেন প্রশাসনিক কর্মকর্তা।

এর আগে ২০১৮-২০১৯ অর্থবছরের বাজেট ছিল ১৭তম বাজেট। ওই বাজেটের আকার ছিল ৪৪৩ কোটি টাকা। আর চলতি বাজেটের আকার অনেক বাড়বে বলে নিশ্চিত হওয়া গেছে।
বিগত অর্থ বছরে কর আদায় শাখায় গৃহকর আদায়ের লক্ষ্য ছিল ২৪ কোটি ৩ লাখ ৪৯ হাজার ৬৫৯ টাকা। আদায় হয়েছে ১৫ কোটি ৮৫ লাখ ৮২ হাজার ৯৯৪ টাকা। আদায়ের হার ছিল ৬৫ দশমিক ৯২ শতাংশ। যা তার পূর্বের অর্থবছরের চেয়ে ১ কোটি ২০ লাখ টাকা বেশি।

নগর ভবনের যানবাহন শাখার সুপারিনটেন্ড মাইনুল ইসলাম মানিক বরিশাল নিউজকে জানান, বর্তমানে সাত হাজার ৪১০টি লাইসেন্সধারী যানবাহন রয়েছে। যারমধ্যে দুই হাজার ৬১০টি হলুদ অটো, প্যাডেল রিকশা চার হাজার ৫০০টি এবং ভ্যান ৩০০টি।
ট্রেড লাইসেন্স শাখা সূত্রে জানা গেছে, বিগত অর্থবছরে ট্রেড লাইসেন্স মারফত আয় হয়েছে ৩ কোটি ১৩ লাখ ৮৩ হাজার ১৫২ টাকা। মোট লাইসেন্স রয়েছে নয় হাজার ৩৫২টি। যারমধ্যে নবায়ন হয়েছে ছয় হাজার ৭৭৬টি এবং নতুন লাইসেন্স হয়েছে দুই হাজার ৫৭৬টি।
আর বর্তমান অর্থবছরে (২০১৯-২০২০) চলতি মাসে সাড়ে সাতশ’ লাইসেন্স এখন পর্যন্ত সম্পন্ন করা হয়েছে। তবে আবেদন পরেছে অসংখ্য।

বরিশাল নিউজ/শামীম