সংবাদ সম্মেলনে বিসিসির মেয়রসহ অন্যান্য কর্মকর্তারা -বরিশাল নিউজ

বরিশাল নিউজ।। বরিশাল সিটি মেয়র সাদিক আবদুল্লাহ বলেছেন, তার আমলে কোনো ট্যাক্স বাড়ানো হয়নি, তাই হোল্ডিং ট্যাক্স নিয়ে উদ্বেগ হওয়ার কোনো কারণ নেই। নগর ভবনের সভাকক্ষে বুধবার দুপুরে সংবাদ সম্মেলনে মেয়র এ কথা বলেন।
তবে তিনি জানান তার আগের মেয়র আহসান হাবিব কামালের পরিষদ ২০১৬ সালে রেজ্যুলেশন করে হোল্ডিং ট্যাক্সের ব্যাপারে যে সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন তা বহাল রেখেছেন তিনি ।

মেয়র সবাইকে আশ্বস্ত করে বলেন,”হোল্ডিং ট্যাক্সের প্রাথমিক কাজ শুরু হয়েছে। যারা স্থাপনা পরিবর্তন, অর্থাৎ দোতলা থেকে তিনতলা কিংবা টিনের ঘর থেকে ভবন করেছেন আর নয়তো নতুন হোল্ডিং এ ভবন করেছেন তাদের ট্যাক্স ধরার কাজ করছি। ”

বিসিসি মেয়র বলেন, “আমরা ট্যাক্স বাড়াতে চাই না, তবে চাই সবার মাঝে সমতা বজায় থাকুক। আগে নানানভাবে অনিয়ম করে ট্যাক্সের অর্থ এমনভাবে কমিয়ে দেওয়া হতো যা নিয়ম বহির্ভূত। কিন্তু আমরা বর্তমান পরিষদ চাচ্ছি, কেউ বেশি, কেউ কম নয়, সবার মাঝে সমতা বজায় থাক। আর নগরবাসীকেও মনে রাখতে হবে ট্যাক্সের টাকায়ই নগরের উন্নয়ন করতে হবে। ”
তিনি বলেন, “নির্ধারিত মাপের পর ট্যাক্স নির্ধারণের ক্ষেত্রে হাউজ লোন, বাড়ির মালিকের নিজের বসবাস ও মুক্তিযোদ্ধা কোটায় টাকার পরিমাণ কমানোর সুযোগ রয়েছে। এরপর তো মেয়র হিসেবে নিজেরও একটা সুপারিশ করার সুযোগ রয়েছে। তবে মনে রাখতে হবে সরকারের আইনের বাহিরে কিছু করার সুযোগ নেই আমার।”

সংবাদ সম্মেলনের শুরুতে সিটি করপোরেশনের সচিব ও প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা মো. ইসরাইল হোসেন করপোরেশনের বিভিন্ন কার্যক্রম নিয়ে কথা বলেন।

প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা বলেন, ট্যাক্স আদায়ের ক্ষেত্রে নানা অনিয়ম করা হয়েছে। যেখানে সিটির ৫২ হাজার হোল্ডিং থেকে ৮০-৯০ কোটি টাকা আদায় হওয়ার কথা, সেখানে আসছে মাত্র ৯ কোটি টাকা। তাই আমরা কঠোর হচ্ছি।
বরিশাল নিউজ/এমএম হাসান