উজিরপুর উপজেলার ধামুড়া-সাতলা সড়ক-বরিশাল নিউজ

বরিশাল নিউজ।। উজিরপুর উপজেলার ধামুড়া-সাতলা সড়কের কাজ শেষ হতেনা হতেই ভাঙ্গণ শুরু হয়েছে। সড়কের রামেরকাঠী অংশের বেশ কয়েকটি স্থানের সড়ক ধ্বসে পরেছে। আবার কোথাও সড়কের মাঝের কার্পেটিং উঠে গেছে।

সহকারী উপজেলা প্রকৌশলী এসএম জিয়াউল হক জানান, সড়কটি পূনঃনির্মানের জন্য ২০১৮-১৯ অর্থবছরে এলজিইডির ফ্লাট ড্যামেইজ রিপেয়ারিং প্রকল্প থেকে তিন কোটি পচাত্তর লাখ টাকা বরাদ্দ দেওয়া হয়। বরিশালের আমির ইঞ্জিনিয়ারিং কোম্পানী নামের ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান সড়কের নির্মান কাজের দায়িত্ব পায়। ২০১৯ সালের ৩০ জুন সড়ক নির্মানের কাজ শেষ করা হয়।
তিনি আরও জানান, কাজের শুরুতেই সড়ক ব্যবহারকারী যানবাহনের শ্রমিক ও স্থানীয় জনসাধারণ নির্মান কাজে নিন্মমানের সামগ্রী ব্যবহারের অভিযোগ করেন। তাদের অভিযোগের প্রেক্ষিতে চলতি বছরের এপ্রিল মাসে সংশ্লিষ্ট উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা আকস্মিক সড়ক এলাকা পরিদর্শন করেন। ওই সময় সড়ক নির্মান কাজে পচা গলা ইটের খোয়া দিয়ে রোলার চাঁপা দেওয়ার সময় কর্মকর্তারা তাৎক্ষণিক সড়কের সকল কাজ বন্ধ করে দেয়।
স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, এ ঘটনার কয়েকদিন পরেই মে মাসে উপজেলা প্রকৌশলীর যোগসাজসে তরিৎগতিতে সেই নিন্মমানের সামগ্রী ব্যবহার করেই পুনরায় সড়কের কাজ সম্পন্ন করে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান। জুন মাসের মধ্যেই চলাচলের জন্য সড়কটি উন্মুক্ত করে দেয়া হয়।
সূত্রমতে, চলতি মাসের ১২ আগস্ট প্রথম সড়কের রামেরকাঠি অংশের মাঝখান থেকে কার্পেটিং উঠে যেতে থাকে এবং ১৫ আগস্ট একই এলাকার তিনটি স্থানে বড় বড় ফাঁটল ধরে ।
ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের মালিক আমির হোসেনের সড়কের মাঝখান থেকে কার্পেটিং উঠে যাওয়ার বিষয়ে সাংবাদিকদের বলেন, এরকম হওয়ার কথা নয়, তবে যদি এরকম হয়ে থাকে সেক্ষেত্রে আগামি একবছরের মধ্যে সড়কের যাবতীয় ক্ষয়ক্ষতি হলে তা আমাকে মেরামত করে দিতে হবে। এছাড়াও ভেঙ্গে যাওয়া অংশগুলো ইতোমধ্যে মেরামতের কাজ শুরু করা হয়েছে বলেও তিনি উল্লেখ করেন।
বরিশাল নিউজ/শামীম