ভোলা প্রেসক্লাবে ‘সর্বদলীয় মুসলিম ঐক্য পরিষদ’ এর সংবাদ সম্মেলন-বরিশার নিউজ

ভোলা নিউজ।। নবীকে নিয়ে ‘কটূক্তিকারীর’ ফাঁসি, পুলিশ কর্মকর্তাদের অব্যাহতিসহ ৬ দফা দাবি পূরণের জন্য প্রশাসনকে ৭২ ঘণ্টা সময় বেঁধে দিয়েছে ভোলার ‘সর্বদলীয় মুসলিম ঐক্য পরিষদ’।
ভোলার বোরহানউদ্দিনে ‘তৌহিদি জনতার’ ব্যানারে এক সমাবেশ শেষে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে চারজন নিহত হওয়ার পর স্থানীয় কয়েকটি ইসলামপন্থি দল মিলে এই ‘ঐক্য পরিষদ’ গঠন করে আন্দোলন চালাচ্ছে।
ঐক্য পরিষদের আহ্বায়ক জেলা ‘ঈমান আক্বিদা সংরক্ষণ কমিটির’ সভাপতি মাওলানা বশির উদ্দিন বেলা সাড়ে ১১টার দিকে ভোলা প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে এসে বলেন, “ভোলার নেতা তোফায়েল আহমেদ এমপি ও ডিসি মহোদয়ের অনুরোধে আমাদের সমাবেশ স্থগিত করেছি।
“তবে আমরা ৬ দফা দাবি দিয়েছি, তা আগামী ৭২ ঘণ্টার মধ্যে বাস্তবায়ন করতে হবে। না হলে আমরা কঠোর কর্মসূচি দেব।”

সংঘর্ষে হতাহতের ঘটনায় সোমবার সকালে ভোলা সরকারি স্কুল মাঠে সমাবেশের ডাক দিয়েছিল এই ঐক্য পরিষদ। কিন্তু প্রশাসন অনুমতি না দেওয়ায় এবং ওই মাঠ ঘিরে বিপুল সংখ্যক পুলিশ অবস্থান নেওয়ায় সমাবেশের বদলে সংবাদ সম্মেলন করার ঘোষণা দেওয়া হয়।

মাওলানা বশির উদ্দিন বলেন, মঙ্গলবার বিকালে ভোলার প্রতিটি থানায় বিক্ষোভ মিছিল আহ্বান করেছেন তারা। বৃহস্পতিবার বিকালে তারা জেলা সদরে মানববন্ধন করবেন। পরে শুক্রবার বিকালে সংঘর্ষের ঘটনায় নিহতদের জন্য দোয়া মাহফিলের আয়োজন করবে ‘সর্বদলীয় মুসলিম ঐক্য পরিষদ’।

সংবাদ সম্মেলনে ৬ দফা দাবি পড়ে শোনান ঐক্য পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক মিজানুর রহমান, যিনি ঈমান আক্বিদ্বা সংরক্ষণ কমিটিতেও একই দায়িত্বে রয়েছেন।

তাদের দাবিগুলো হলো,যে যুবকের ফেসবুক আইডি থেকে ‘অবমাননাকর’ বক্তব্য এসেছে বলে অভিযোগ উঠেছে, তার ফাঁসি কার্যকর, সংঘর্ষে নিহতদের লাশ বিনা ময়নাতদন্তে পরিবারের কাছে হস্তান্তর, আহতদের সরকারি খরচে চিকিৎসা, ভোলার পুলিশ সুপার ও বোরহানউদ্দিনের ওসিকে প্রত্যাহার, নিহতদের ক্ষতিপূরণ প্রদান ও গ্রেপ্তারকৃতদের বিনা শর্তে মুক্তি দেওয়া।
বরিশাল নিউজ/ভোলা