বরগুনা নিউজ।। বরগুনা সদর উপজেলার ঢলুয়া ইউনিয়নের নলী গ্রামে বসত ঘর থেকে শুক্রবার সকালে স্বামী-স্ত্রীর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। নিহতরা হচ্ছেন, আবদুল মন্নান (৭৫) ও তার স্ত্রী ফাতেমা বেগম (৬৫)। বরগুনার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. শাহজাহান হোসেন জানিয়েছেন, মরদেহ উদ্ধারের পাশাপাশি বড় ছেলে নজরুল ইসলাম ননী ও তার স্ত্রী বিথী আক্তার ছোট্টকে আটক করা হয়েছে। নজরুলের ছেলে নয়ন পলাতক রয়েছে। তাদের ধারনা অল্প সময়ের মধ্যেই হত্যা রহস্য উদঘটিত হবে।
আবদুল মন্নান দীর্ঘদিন ধরে প্যারালাইজ হয়ে বিছানায় পড়ে আছেন। তার ২ ছেলে । ছেলেরা অনেক আগেই বাবার সম্পত্তি লিখে নিয়েছেন। এরপর থেকে বাবা-মায়ের ভরন-পোষন দিতোনা। বর্তমানে মায়ের ৪৪ শতাংশ জমি লিখে নেবার জন্য ছেলেরা পায়তারা করে আসছিলো। জমি লিখে না দেয়ায় বড় ছেলে নজরুল ইসলাম ননী ও তার স্ত্রী বিথী একাধিকবার বৃদ্ধ বাবা-মাকে মারধর করেছে। এলাকাবাসী এনিয়ে একাধিকবার সালিশ বৈঠক করেছেন। ছোট ছেলে জহিরুল ইসলাম বরগুনা শহরে বসবাস করেন। বৃহস্পতিবার রাতে বসত ঘরের বারান্দায় একত্রে ঘুমিয়ে ছিলেন, আবদুল মন্নান ও তার স্ত্রী ফাতেমা বেগম। পাশের ঘরে ছিল, তার বড় ছেলে নজরুল ইসলাম ননীসহ পরিবারের সদস্যরা।
বরিশাল নিউজ/কাদের