নির্বাচনী সহিংসতা; তজুমদ্দিনে ১২০ জনের নামে মামলা

ভোলা নিউজ।। ভোলার তজুমদ্দিন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে দু’পক্ষের মধ্যে সহিংসতা ও পাল্টপাল্টি অভিযোগে পরিবেশ উত্তপ্ত হয়ে উঠছে। সোমবার রাতভর উপজেলার চাঁচড়া ও সোনাপুর ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ ও স্বতন্ত্র প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে হামলা ও ভাংচুরের ঘটনা ঘটেছে। আহত হয়েছে কমপক্ষে ৩০ জন । এ সময় থানা পুলিশের চারটি টিম ও ভোলা ডিবি পুলিশ ৯ জনকে আটক করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এ ঘটনায় নৌকার সমর্থক বাদী হয়ে ১৬ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাতনামা ১২০ জনকে আসামী করে একটি মামলা দায়ের করেন।
পুলিশ ও স্থানীয় সুত্রে জানা যায়, উপজেলার চাঁচড়া ইউনিয়নের কাটাখালী এলাকায় সোমবার রাত ৮টায় আ’লীগ প্রার্থী ফজলুল দেওয়ান ও স্বতন্ত্র প্রার্থী মোশারেফ হোসেন দুলালের সমর্থকদের মধ্যে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে একটি হোন্ডাতে আগুন দিয়ে অপর দুইটি নিয়ে যায়। এর জের ধরে চাঁচাড়া ও সোনাপুর এলাকায় উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। এ সময় আনন্দ বাজার, চাঁচড়া ইউপি পরিষদের সামনে, মঙ্গল সিকদার উত্তর বাজার, সোনাপুর আনন্দ বাজার, চর জহিরউদ্দিনসসহ ৮টি স্পটে উভয় পক্ষের নির্বাচনী অফিস ভাংচুরের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় ছালাউদ্দিন, রুবেল, নজরুল, আলমগীর মেম্বার, ভূট্টোসহ উভয় পক্ষের প্রায় ৩০জন আহত হয়।
অফিসার ইনচার্জ ফারুক আহম্মেদ জানান, ওসি তদন্ত আনোয়ারুল ইসলাম, এসআই জসিম উদ্দিন, আল আমিন ও নির্বাহি ম্যাজিষ্ট্রেট দিদারুল আলমের নেতৃত্বে ৪টি টিম রাতভর চেষ্টা চালিয়ে পরস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। মঙ্গলবার সকালে ভোলার ডিবির ইনসপেক্টর আঃ সোবহানের নেত্রত্বে একটি টিম অভিযানে অংশ নিয়ে শিবলু, সবুজ, সেলিম, আইয়ুব, জাহাঙ্গীর, মন্নান, ছলেমান, নিরব ও জসিমসহ ৯জনকে আটক করে। এ ঘটনায় নৌকার সমর্থক মানু মিয়া বাদী হয়ে ১৬ জনকে এজহারভুক্ত করে অজ্ঞাত আরো ১২০ জনকে আসামী করে মামলা দায়ের করেন।
বরিশাল নিউজ/শরীফ