বরিশাল শের ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল

বরিশাল নিউজ।। বরিশালের শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ (শেবাচিম) হাসপাতালের ময়লার স্তূস্পে থেকে ভ্রুনসহ বিভিন্ন উদ্ধারের ঘটনায় তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হচ্ছে।

পাশাপাশি হাসপাতালের গাইনি বিভাগের প্রধান সহযোগী অধ্যাপক ডা. খুরশীদ জাহান বেগম এবং ওয়ার্ড ইনচার্জ স্টাফ নার্স জোৎসা আক্তারকে সাময়িক বরখাস্ত করার সুপারিশ মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হচ্ছে।

হাসপাতাল পরিচালক ডা. বাকির হোসেন রাতে জানান, ৩১ অপরিণত শিশুর (ফিটাস) ভ্রুণ উদ্ধারের ঘটনার পর রাত সাড়ে ১০টার দিকে স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজাদ মোবাইল ফোনে বিষয়টি জানতে চান এবং ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য বলেন।

যেহেতু চিকিৎসক ও নার্সদের (সেবিকা) বিষয়ে বিধি মোতাবেক ব্যবস্থা নেওয়ার (সাময়িক বরখাস্ত) এখতিয়ার হাসপাতাল প্রশাসনের নেই। তাই বিধি অনুযায়ী তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য অধিদফতরে সুপারিশ পাঠানো হচ্ছে। যেখানে সাময়িক বরখাস্ত করার কথা উল্লেখ থাকবে।

পরিচালক ঘটনাটিকে অমানবিক বলে দু:খ প্রকাশ করেছেন। তিনি বলেন শিক্ষার্থীদের হাতে-কলমে শিখানোর জন্য সব মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে অপরিণত ভ্রুণ বা ফিটাস সংরক্ষণ করা হয়ে থাকে। প্রায় ৩০ বছর ধরে সংরক্ষিত করে রাখা এসব ফিটাস বাতিল করার সিদ্ধান্ত সঠিক ছিলো। কিন্তু তা ডিসপোজাল করার পদ্ধতি সঠিক ছিলো না। এগুলো মাটির গর্তে রাখার কথা।