বরগুনা-১ : আ’লীগের ৫২ প্রার্থী, প্রধানমন্ত্রীকে প্রার্থী চায় সবাই

বরিশাল নিউজ।। বরগুনা সদর, আমতলী ও তালতলী উপজেলা নিয়ে গঠিত বরগুনা-১ আসনটিকে আ’লীগের ‘রিজার্ভ সিট’ হিসেবে ধরা হয়। এখানকার ভোটাররাও মনে করেন বরগুনা মানেই আওয়ামী লীগ। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সেই বরগুনা-১ আসনে এবার দলের মনোনয়নপ্রত্যাশী ৫২ জন। ক্ষুব্ধ কর্মীরা বলেন, দলীয় কোন্দল কোথায় পৌঁছুলে সবাই নেতা হয় বরগুনা তার প্রমান। এই অবস্থায় তারা ওই আসনে প্রধানমন্ত্রী ও দলের সভানেত্রী শেখ হাসিনাকে প্রার্থী দেখতে চান।
বরগুনা জেলা সদর ও বেতাগী উপজেলা নিয়ে ছিল বরগুনা- ১ আসন। বামনা ও পাথরঘাটা উপজেলা নিয়ে ছিল বরগুনা-২ আসন। আমতলী ও তালতলী উপজেলা নিয়ে ছিল বরগুনা-৩ আসন। ২০০৮ সালে তত্ত্বাবধায়ক সরকার আমলে নির্বাচনী এলাকা কমিয়ে বরগুনা -১ ও বরগুনা-২ আসন গঠন করা হয়। এরফলে বরগুনা-৩ বিলুপ্ত হয়ে সদরের সাথে আমতলী ও তালতলী উপজেলাকে যুক্ত করে গঠন করা হয় বরগুনা-১ আসন।
সাবেক বরগুনা -৩ (আমতলী-তালতলী) আসনে কোন্দল ঠেকাতে ২০০১ সালের নির্বাচনে প্রার্থী হয়েছিলেন দলীয় সভানেত্রী শেখ হাসিনা। তার সাথে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে পরাজিত হন বিএনপি প্রার্থী মতিউর রহমান তালুকদার। শেখ হাসিনা পরে ওই আসন ছেড়ে দিলে উপনির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হন গোলাম সরোয়ার ফোরকান। কিন্তু তিনি নির্বাচনে বিএনপি প্রার্থী মতিউর রহমান তালুকদারের কাছে পরাজিত হন।

এদিকে ১৯৯১ ও ১৯৯৬ সালের বরগুনা-১ আসনে (সদর ও বেতাগী) বিজয়ী হন ধীরেন্দ্র দেবনাথ শম্ভু । তিনি ১৯৯৬ সালে বিজয়ের পর মন্ত্র্রীসভায় স্থান পান। কিন্তু ২০০১ সালের নির্বাচনে এসে দলের বিদ্রোহের মুখে পরেন তিনি। সেই সময়ে বিদ্রোহী প্রার্থী দেলোয়ার হোসেনের কাছে পরাজিত হন শম্ভু। এরপর ২০০৮ ও ২০১৪ সালের নির্বাচনেও দলীয় বিদ্রোহী দেলোয়ার হোসেনের সাথে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেই বিজয়ী হয়েছেন তিনি। এবার তার বিপক্ষে দাড়িয়েছেন ৫১ জন। জেলা আওয়ামী লীগ দলীয় সংসদ সদস্য ধীরেন্দ্র দেবনাথ শম্ভুকে কিছুদিন আগে অবাঞ্চিত ঘোষণা করেছে।
এ বিষয়ে জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক গোলাম সারোয়ার টুকু বলেন, ‘আমাদের প্রার্থী যেই হোক অসুবিধা নেই। তবে ধীরেন্দ্র দেবনাথ শম্ভুকে কোনোভাবেই মেনে নেবে না এখানকার মানুষ। তাই আমরা চাই পরিবর্তন।’
বিষয়টি শেষ পর্যন্ত মীমাংসিত না হলে এই আসন থেকে আবারও ভোট করতে পারেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
বরগুনা-১ আসনে মোট ভোটার ৪ লাখ ৩৩ হাজার জন। এরমধ্যে আমতলী-তালতলী উপজেলায় ২ লাখ ৪০ হাজার, বরগুনা সদরে ১ লাখ ৯৩ হাজার ভোটার রয়েছে।
বরিশাল নিউজ/এমএম হাসান

Comments

comments

২০১৮-১১-১৬T২১:১৪:৫২+০০:০০শুক্রবার, নভেম্বর ১৬, ২০১৮ ৯:১৪ অপরাহ্ণ|